Advertising
hemel
Advertising
hemel

চোরের বাস দোতলায় গৃহস্থের গাছ তলায়

তানোর ‘রাজশাহী’ প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর তানোরে হতদরিদ্র পরিবারের একমাত্র সম্বল গরু ‘গাভী’ চুরি করে চোর হায়দার আলী আতœগোপণ করেছে। গত মঙ্গলবার তানোরের তালন্দ ইউপির নারায়নপুর গ্রামে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এই গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। পরের দিন বুধবার রাজশাহী সিটি পশু হাটে গরু বিক্রি করে ধরা পড়ে। কিšত্ত এ ঘটনার পর থেকে চোর হায়দার আলী আতœগোপণে রয়েছেন। স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধি ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করছে দৌড়-ঝাপে ব্যস্ত রয়েছেন।

এদিকে গ্রামবাসি হায়দার আলী দীর্ঘদিন ধরে একটি গরু চোর সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য হয়ে চুরির টাকায় দোতলা বাড়ী নির্মাণ করে বিলাস জীবনযাপন করছেন, আর মালিকদের গরু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গাছ তলায় বসবাসের উপক্রম হয়েছে। অপরদিকে গরুর মালিক হতদরিদ্র বিধবা বিচারের আশায় চেয়ারম্যান-মেম্বারের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

সরেজমিন গত ১৯ মে শুক্রবার কথা হয় চুরি হওয়া গরুর মালিক বিধবা ও তার পুত্র সারোয়ার হোসেনে জানান, প্রতিদিনের মত ওই বিধবা মঙ্গলবার গরুকে ঘাস খাওয়ানোর জন্যে মাঠে নিয়ে যান এবং গরু মাঠে রেখেই তিনি খাবারের জন্য বাড়ি আসেন। আর এই সুযোগে হায়দার আলী ওই বিধবার গাভী গরু চুরি করে এলাকা ছাড়া হয়। পরবর্তীতে রাজশাহী সিটি পশু হাটে হায়দার আলীকে ওই গরু বিক্রি করতে দেখেন তার প্রতিবেশিরা।

এ খবর জানার পরে গ্রামবাসি হায়দার আলীকে আটক করে জিজ্ঞাসাদ করলে হায়দার গরু চুরির কথা শিকার করেন এবং ক্ষতিপূরুণের আশ্বাষ দেন। এদিকে বিষয়টি আপোষ-মিমাংসার কথা বলে মেম্বার হাশেম আলী আজকাল করে কালক্ষেপণ করে চলেছেন।

এ নিয়ে তালন্দ ইউপি সদস্য হাসেম আলী জানান, বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন তবে হায়দার আলী গরু চুরির পর থেকে বাড়ীতে নাই। এই জন্যে চুরির ঘটনায় কোন সালিশ বিচার করা যাচ্ছে না। এব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মির্জা আব্দুস সালামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এ ঘটনায় এখনো অভিযোগ হয়নি। তবে লোকমারফত জানতে পেরে চুরির ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

Related posts