Advertising
hemel
Advertising
hemel

আমি কিছু বুঝে উঠার আগেই ও আমার সঙ্গে অনেকবার…!

আমরা সব সময় বলে থাকি যে, জীবন থাকলে সমস্যা থাকবে, আর সমস্যা থাকলে উত্তরনের উপায়ও থাকবে। কিছু কিছু সমস্যা প্রকট অবার কিছু সমস্যা সামান্য। সব সমস্যা মোকাবেলা করে জীবনকে এগিয়ে নিতে হবে। আমি একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় বর্ষে পড়ছি। সবার জীবনেই প্রেম ভালোবাসা আসে এটা চিরন্তন সত্য। কোনভাবেই এটা অস্বীকার করার উপায় নেই, আমার জীবনেও এসেছিলো। তবে আমি সফল নয় এক্ষেত্রে, আর সেই মর্মবেদনায় আমি ধুকে ধুকে মরছি, আপু আমার প্রথম সম্পর্ক হয়েছিল ক্লাস নাইনে থাকতে। এরপর থেকেই ঘটনার সুত্রপাত।

ছেলেটি তখন ইন্টারমিডিয়েট পড়তো, আমার সঙ্গে সম্পর্ক করার জন্য প্রায় এক বছর ধরে ঘুরেছে কিন্তু আমি প্রথমে রাজি হয়নি, দিনে দিনে ছেলেটার যথেষ্ট আগ্রহ দেখে একসময় রাজি হয়ে যাই। আমাকে ছাড়া সে একমুহুর্ত থাকতে পারতো না। আমি টিউশন থেকে বা স্কুল থেকে ফেরার পথে ওর সঙ্গে দেখা করতাম, একসময় আমরা আরও ঘনিষ্ঠ হই। এভাবে প্রায় দুইবছর পার হয়, আমার এসএসসি পরিক্ষার কিছুদিন আগে আমি ওর সঙ্গে দেখা করি। আমার যথেষ্ট নিষেধ থাকা সত্বেও ওর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক হয়। এরপর আরও কয়েকবার হয়েছিলো। কিন্তু একদিন আমি বুঝতে পারি ওর চরিত্র খারাপ। সে আমারই বান্ধবীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িত। যেটা আমি হাতেনাতে ধরে ফেলি।

বলতে পারেন সে কেন এমন করলো? আমিতো তাকে অপূর্ণ রাখিনি, আমি তাকে কোনদিন সন্দেহ করিনি। আর আমার বান্ধবী একটু দূরের ছিলো। এইজন্যই উর্মির সঙ্গে যে রিয়াদের আগে থেকে সম্পর্ক রয়েছে এটা আমি জানতাম না। পরে উর্মির কাছ থেকে জানতে পারি যে, উর্মির সঙ্গে সম্পর্ক করার জন্য ওকে উর্মির মামারা ব্যাপক মারধর করেছে। একারণে উর্মি ওকে প্রচন্ড ভালোবাসে কিন্তু আজ উর্মিরও ভুল ভেঙ্গেছে। এরপর থেকে আমি অনেক অফার পেয়েছি সম্পর্ক করার জন্য কিন্তু করিনি। এখন পর্যন্ত কোন ছেলেকেই আমি আর সহ্য করতে পারিনা। আমার যদি বিয়ে হয় আমার স্বামী কি এটা স্বাভাবিকভাবে নিবে। আর আমি বিয়ে করার জন্য ইচ্ছুক না কারণ ইদানিং সব ছেলেকেই আমার ভন্ড বলে মনে হয়।

Related posts