Advertising
hemel
Advertising
hemel

স্লিম হলে শুক্রাণুর মান বাড়ে

স্থূলতা পুরুষের শরীরে শুক্রাণুর পরিমাণ কমিয়ে দেয় এবং স্লিম থাকলে পুরুষের দেহে এর গুণগত মান বৃদ্ধি পায়; যেটা তাদের স্ত্রীদের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনাও বাড়িয়ে দেয়। সন্তান নেওয়ার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন-এমন দম্পতিদের জন্য এক গবেষণায় এই দিক নিদের্শনা দিয়েছে কানাডার শেরব্রুক ইউনিভার্সিটির এক দল গবেষক।

সম্প্রতি ইন্দোক্রিন সোসাইটির বার্ষিক সভায় এ তথ্য তুলে ধরেছেন ঐ গবেষক দলের সদস্যরা। তারা জানিয়েছেন, সন্তান উৎপাদনের জন্য টেস্টটিউব পদ্ধতির (আইভিএফ) বিকল্প হিসেবে এই পদ্ধতি পুরুষের ক্ষেত্রে সন্তান উৎপাদনে সহায়ক। যা ‘বাস্তব সম্ভাবনার’ দ্বার উন্মুক্ত করতে পারে।

সভায় বিশেষজ্ঞরা যেসব নারী সন্তান ধারণের চেষ্টা করে যাচ্ছেন তাদেরও ওজন কমানোর পরামর্শ দেন। তাছাড়া পুরুষের বন্ধ্যাত্বের পেছনেও স্থূলতাকেই দায়ী করা হয়। গবেষক দলটি বলছে, স্লিম পুরুষদের সহায়তা এবং স্লিম থাকার ফলে তাদের স্ত্রীদের গর্ভধারণের সম্ভাবনা কতটুকু সেটা যাচাই করতে এ গবেষণা চালানো হয়েছে।

এ গবেষণার জন্য ৬৫ দম্পতিকে প্রজনন ক্লিনিকে পাঠানো হয়। পুরুষরা সেখানে এক বছর ধরে তাদের পুষ্টি এবং শারীরিক কর্মক্ষমতার ওপর সাপ্তাহিক গ্রুপ সেশনে অংশ গ্রহণ করেন। এতে দেখা যায়, যারা বেশি স্লিম তাদের স্ত্রীরা অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন। এই ফলাফলে আশ্চার্য হয় গবেষক দলটি। গবেষক দলের একজন হচ্ছেন ডাক্তার জিন প্যাট্রিক বেলারজিওন। তিনি জানিয়েছেন, যেসব পুরুষের সঙ্গীরা স্থুল তাদের ক্ষেত্রে সন্তান ধারণের সম্ভাবনা কমে যায়। স্থূলতা পুরুষের শুক্রাণু এবং তার মানের ওপরও সরাসরি প্রভাব ফেলে বলে মনে করেন তিনি।

Related posts