Advertising
hemel
Advertising
hemel

আমি মেয়ে হয়ে একদিনেই ৬ থেকে ৮ জনের সাথেই….

আমার পরিবারে সদস্য সংখ্যা মোট পাচ জন। আমরা দুই বোন এক ভাই আর বাবা-মা। আমার অশান্তি শুরু ছেলেবেলা থেকেই।আমার বাবা একজন ব্যবসায়ী আর মা চাকুরীজীবী। আমরা ভাই বোনেরা কখনও তাদেরকে ঠিকমতো পাইনি, মা নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে চাকরি করার জন্য সবসময় বাবার নির্যাতনের শিকার হতো।

আমার বড় আপা এক ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে ছিলো। তবে সেই ছেলে আমার আপার মতো সহজ সরল মেয়েকে ভালোবাসার ফাঁদে ফেলে অনেক ধোকা দিয়েছে, তারপর থেকে আমি কোন ছেলেকেই সহ্য করতে পারিনা। আমরা মেয়েরাই কি শুধু ছেলেদের হাতের পুতুল হয়ে থাকবো….?

আমি সত্য কথা বলছি। স্কুল জীবন থেকে এখন পর্যন্ত আমি অনেক ছেলের সঙ্গেই প্রেম করেছি। সবাইকে ধোকা দিয়ে ছেড়ে দিয়েছি। আর আমি মেয়ে হয়েই একদিনে ছয় থেকে আটজন ছেলের সঙ্গে ডেটিং করেছি। তাই বলে নিজের সতীত্ব কে বিসর্জন দেইনি।

এমনও দিন গেছে যে সকালে একজনের সঙ্গে ডেটিং করে দুপুরে একজনের সঙ্গে, বিকেলে আরও দুইজনের সঙ্গে আবার রাতে আরও দুইজনকে অপেক্ষায় রেখেছি। কিন্তু আমি আর পারছি না। দিনে দিনে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছি। এ কেমন খেলায় মেতে উঠেছি আমি।আমি জানিনা এই খেলার শেষ কোথায়? নিজেকে বিরত রাখতেও পারছি না। কারণ ওরা সবাই আমাকে চায়।

আমিতো কাওকে জীবনসঙ্গী হিসেবে গ্রহণ করতে পারবো না,।কেও তো আমার অতীত জেনে আমাকে নিতে চাইবে না। আর আমার বিয়ে করার কোন ইচ্ছে ছিলো না। তবুও আমার আম্মু আমাকে ভীষণ চাপ দিচ্ছে। আমি স্বাভাবিক হয়ে বিয়ে না করলে উনি আত্মহত্যা করবে। এখন আমাকে কিছু একটা বলেন যেন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারি কারণ আমি আর আমার আম্মুকে কোন কষ্ট দিতে চাইনা।

পরামর্শ: আপু আপনার মনের অবস্থা সম্পূর্ণ না হলেও কিছুটা বুঝতে পেরেছি। আপনি মানসিকভাবে ভীষন ভেঙ্গে পড়েছেন। আর আপনে বুঝতে পাড়ছেন না কিভাবে এটার সমাধান হবে। তাহলে শুনুন, প্রথমে আপনে ধীরে ধীরে বিভিন্ন রকম ছেলেদের সাথে ডেট করা ছেড়ে দিন। তারপর নিয়মিত নিজের শরীর চর্চা সহ বাড়ির বিভিন্ন ছোটখাটো কাজে ব্যস্ত থাকেন। তারপর যেহেতু আপনে মন থেকে কোনো ছেলেকে ভালোবাসেন না সেহেতু আপনার মায়ের পছন্দ মত ছেলেকে বিয়ে করুন। দেখবেন আস্তে আস্তে সব ঠিক হয়ে যাবে।

Related posts