Advertising
hemel
Advertising
hemel

ধোনিকে বাংলাদেশের কাছে পরাজয়ের স্মৃতি এখনও পোড়ায়

ভারত ২০০৭ সালের বিশকাপে রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশের কাছে হেরে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছিল। সেইবার দেশে ফিরে বাজে অভিজ্ঞতা হয় ভারতীয় ক্রিকেটারদের। বিশেষ করে ভারতের সীমিত ওভারের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির। সে ঘটনা এখনও পীড়া দেয় ধোনিকে।

আসছে ৩০ সেপ্টেম্বর বিশ্বব্যাপী মুক্তি পেতে যাচ্ছে ধোনির বায়োপিক এমএস ধোনি: ‘দ্য আনটোল্ড স্টোরি’। এই সিনেমাতে ধোনির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। নিউইয়র্কে তার বায়োপিক রিলিজ সম্পর্কিত এক অনুষ্ঠানে খেলোয়াড়ী জীবনের সবচেয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতাই জানালেন ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। 

সেইবার দেশে ফেরার পর সমর্থকের রোষের কবলে পড়তে হয়েছিল ভারতীয় জাতীয় দলের ক্রিকেটারেরা। আর দ্রাবিড় ও ধোনির বাড়িতে ঢিল ছুঁড়েছিলেন ক্ষুব্ধ সমর্থকরা। ঘটনার স্মৃতিচারণ করে মহেন্দ্র সিং ধোনি বললেন, ‘ভারত কোন ম্যাচ যখন হারে, সমর্থকরা এমন আচরণ  শুরু করেন মনে হয়, আমরা কোনো বড় ধরণের অপরাধ করেছি অথবা আমরা খুনি কিংবা আমরা সন্ত্রাসী।’

দিল্লি বিমানবন্দরে নামার পর ভারতীয় ক্রিকেটারদের কী অবস্থা হয়েছিল সেটা শুধু আমরাই জানি? তার বর্ণনা দিতে গিয়ে ধোনি  আরও বলেন, ‘দিল্লিতে নামার পর দেখি প্রচুর সংবাদ কর্মীরা সেখানে ভীড় করেছে। আর আমাদের পুলিশ ভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

গাড়িতে আমি শেবাগের কাছে বসেছিলাম। গাড়ির গতি ছিল ৬০ থেকে ৭০ কিমি।আর রাস্তাটা ছিল সরু। মিডিয়ার গাড়িও আমাদের পেছনে পিছনে  চলছিল। মিডিয়ার ক্যামেরা ও লাইট আমাদের গাড়ির উপর পড়ছিল।’কিছুটা যাওয়ার পর পুলিশ স্টেশনে আমাদের সবাইকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেখানে আমরা প্রায় ১৫ থেকে ২০ মিনিট বসেছিলাম। এই ঘটনা আমার জীবনে বিরাট  বড় প্রভাব ফেলেছিল। অনেকে  আবার মনে করেন, আমাদের কোনো আবেগ নেই। তবে খেলোয়াড়দেরও আবেগ থাকে।

Related posts