Advertising
hemel
Advertising
hemel

‘এতগুলো মানুষের দোয়া বৃথা যেতে পারে না’: পাপন

বাংলাদেশের ক্রিকেট মহলে এখন স্বস্তির সুবাতাস। এক বিবৃতি দিয়ে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতেই ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) জানিয়ে দিয়েছে তারা আসবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) স্বাভাবিক ভাবেই এই কারণে উচ্ছ্বসিত। বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কণ্ঠেও তাই স্বস্তি। জানালেন, ‘যেখানে যাই, সবাই একটাই প্রশ্ন করছিল আমাকে- ইংল্যান্ড আসবে? এই যে বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ, তারা নিশ্চয়ই দোয়া করেছে। আর এতগুলো মানুষের দোয়া বৃথা যেতে পারে না। আমার মনেও সাহস ছিল ইংল্যান্ড আসবে।’

শুক্রবার দুপুরে নিজ বাস ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য নাজমুল হাসান পাপন প্রশংসা করলেন বিসিবির নিরাপত্তা ব্যবস্থার। তিনি জানিয়েছেন, ‘ইংল্যান্ডকে যে মানের নিরাপত্তা পরিকল্পনার কথা বলা হয়েছে সেটি পৃথিবীর আর কেউই দেয় না। পৃথিবীর কোনও দেশই কিন্তু নিরাপদ না।

যে কোনও জায়গায় এমন কিছু হতে পারে।কিন্তু কোথায় হবে, কবে হবে এটা কেউ জানে না। আর আমার ধারণা ছিল এর চেয়ে ভালো নিরাপত্তা পরিকল্পনা কেউ করতে পারবে না।’ গেল বছর এই নিরাপত্তা ইস্যুতেই বাংলাদেশ সফর বাতিল করেছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। এমনকি বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপেও তারা দল পাঠায়নি।কিন্তু এসব ব্যাপারে বরাবরই অন্যদের থেকে আলাদা ইংল্যান্ড।

পাপন এই প্রসঙ্গে জানালেন, ‘আমাদের কাছে মনে হয়েছে ইংল্যান্ড সাধারণত এই ধরণের সন্ত্রাসের কাছে মাথা নত করার মতো না। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া না আসলেও তারা এসেছে। ভারতেও একবার এই ধরনের ঘটনায় তারা সিরিজ বাতিল করেনি।’

সব ঠিক ঠাক থাকলে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় পা রাখবে সফরকারী ইংল্যান্ড দল। বিসিবি বর্তমানে সুষ্ঠভাবে তিন ওয়ানডে আর দুই টেস্ট ম্যাচের এই সিরিজ আয়োজন করতে বদ্ধপরিকর। আর বিসিবি সভাপতিও সেই বিষয়ে আশাবাদী। তিনি জানালেন, ‘আমাদের সাথে ইংল্যান্ডের সুসম্পর্ক সব সময়ই ছিল। দুই বোর্ডের ভালো সম্পর্ক বিরাজ করছে। আর অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে এতগুলো দলগুলোকে সামলেছি। তাই শুধু ইংল্যান্ডকে সামাল দেওয়া কঠিন কিছু না।’

Related posts