Advertising
hemel
Advertising
hemel

‘চুপ’ ইসিবির নিরাপত্তা দল চট্টগ্রামেও

বাংলাদেশ সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর কাছ থেকে পর্যাপ্ত সহযোগিতার জন্য সন্তোষ প্রকাশ করেছে সফররত ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলটি। শুক্রবার চট্টগ্রামের ম্যাচ ভেন্যু জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, প্র্যাকটিস ভেন্যু এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, টিম হোটেল পরিদর্শনের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে বৈঠক করেন তারা। কিন্তু নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি প্রতিনিধি দলটি।

ইসিবির ক্রিকেট অপারেশনের ডিরেক্টর জন কার জানিয়েছেন, ‘ঢাকার পর আমরা চট্টগ্রামে সফর করলাম আমরা। এটা আমাদের রুটিন সফর ছিল। বাংলাদেশের আগে আমরা ভারতেও সফর করেছি। আমরা বাংলাদেশ সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর কাছ থেকে ভালো সহযোগিতা পেয়েছি।’ চট্টগ্রামের ভেন্যু সম্পর্কে তারা বেশ অবগত ছিলেন উল্লেখ করে তিনি জানিয়েছেন, ‘এর আগে চট্টগ্রামে বিশ্বকাপের সময় ইংল্যান্ড দল এখানে খেলেছে।

তাই আমরা চট্টগ্রামের ভেন্যু সম্পর্কে জানি।’ বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে অবশ্য কোনো মন্তব্য করতে চাননি ডিরেক্টর জন কার। তিনি  বলেন, ‘আমরা এখন কোনো মন্তব্য করবো না। আমরা ইংল্যান্ডে ফিরে গিয়ে বাংলাদেশের নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে একটি প্রতিবেদন তৈরি করবো। আর ঐ প্রতিবেদনটি আমাদের সরকারকে দেবো।’ আর বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘এর আগেও ইংল্যান্ড দল চট্টগ্রামে খেলে গিযেছে। তাই তারা চট্টগ্রামের সুযোগ-সুবিধার বিষয়ে জানেন।

আমরা আমাদের সিকিউরিটি প্ল্যান, লজিস্টিক সুযোগ-সুবিধা সব কিছুই তাদের সামনে উপস্থাপন করেছি। আরও বাড়তি নিরাপত্তা দরকার পড়লে আমরা সরকারের সাথে যোগাযোগ করে সে ব্যবস্থা করবো। আর আমরা আশাবাদী ইংল্যান্ড দল বাংলাদেশে খেলতে আসবে।’ ৩০ অক্টোবর দুই ম্যাচের টেস্ট ও ৩টি একদিনের ম্যাচ খেলার জন্য ঢাকায় আসার কথা রয়েছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের। মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে ছাড়াও চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে হবে একটি টেস্ট, একটি ওয়ান্ডে ও ২টি প্রস্তুতি ম্যাচ।

Related posts