Advertising
hemel
Advertising
hemel

‘আমার কিছু মেয়ে ভক্ত আছে’: তাসকিন

বর্তমান ক্রিকেটারদের মধ্যে তাসকিন যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন সেটা স্বীকার করতেই হবে। এই স্বপ্নের নায়কের খোজও কম রাখেন না তরুণীরা। ফোন আর ম্যাসেজ তো রয়েছেই মাঝে মাঝে নাকি বাসায় চিঠিও আসে, হাসতে হাসতে এমনটাই জানালেন ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ। এবারের ঈদে একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পেসার তাসকিন আহমেদ, স্পিনার আরাফাত সানি এবং অলরাউন্ডার সাব্বির রহমান। এ অনুষ্ঠানেই বের হয়ে আসে তাসকিনের জীবনের বিভিন্ন মজার কাহিনী।

কথার ফাঁকে উপস্থাপিকার প্রশ্ন ছিল, মেয়েরা ফোন নম্বর চাইলে পরিস্থিতি কিভাবে সামাল দেন ? লাজুক হেসে উত্তর দিলেন তাসকিন, তিনি বললেন, ‘আসলে আমার কিছু মেয়ে ভক্ত আছে। অনেকে কল করেন, ম্যাসেজ করেন। সবার উত্তর দেওয়া কিংবা কথা বলা সম্ভব না। কারণ খেলা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়, অনুশীলনে ব্যস্ত থাকতে হয়, এতে হয়তো অনেকেই মনঃক্ষুণ্ণ হয়। তাদের জন্য বিশেষ ভাবে বলছি, আমাদের তো ব্যক্তিগত জীবন আছে, ক্রিকেট আছে, যারা ফোন করে কিংবা ম্যাসেজ করে আমাকে পান না, তারা মন খারাপ করবেন না।

ছোট বেলায় তাসকিনের স্বভাব ছিল, যেখানেই মিলাদ হতো তিনি চলে যেতেন। এই তথ্য পাওয়া গেল তাসকিনের বাবার কাছে। ভিডিও ক্লিপসে এই তথ্য দিয়েছেন তিনি। তাসকিনের বাবা আব্দুর রশিদ মজনু জানান, ‘এলাকার যেখানে মিলাদ হতো সেখানে তাসকিন থাকতো। বাসায় কথাও খুঁজে পেতাম না। বাসায় শিক্ষক আসছে কিন্তু তাসকিন নেই, টুপি নিয়ে দৌড় দেয়। ওরা সবাই আরও ভালো খেলুক, আরও সুনাম হোক। তার থেকেও বড় কথা যেন ভালো মানুষ হয়। ক্রিকেটের তাসকিন ক্রিকেট খেলার বাইরে ভিডিও গেম খেলতে ভীষন পছন্দ করেন। এখনও কি ভিডিও গেমস খেলা হয়? শীঘ্রই কি কোথাও খেলা হয়েছে, এমন প্রশ্নে যেন তাসকিন একদম ছোট বেলায় ফিরে যান।

শিশু সুলভ হাসি নিয়ে ক্রিকেটার তাসকিন বলেন, ‘এখন তো ফোনে খেলা হয় বেশি। আর আগে এলাকার দোকানে দুই টাকার কয়েন দিয়ে খেলতাম। ওটা অন্যরকম মজা ছিল। এখনও ভীষন মিস করি। এই তো সেদিন সেহরি করতে গেলাম এক জায়গায়। দেখি ওই গেমস সাজানো। আমি কাউকে কিছু না বলেই গিয়ে খেলা শুরু করে দিয়েছি। মানুষ তাকিয়ে ছিল। তবে আমি ভীষন মনোযোগ দিয়ে খেলছিলাম, আমার ওসব দেখার সময় নেই। ইচ্ছা আছে মাশরাফি বিন মুর্তজার মতো নিজেকে পরিচিত করা। তাছাড়া মুস্তাফিজুর রহমানের সাথে জুটি বেঁধে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার স্বপ্ন দেখেন তারকা এই পেসার।

Related posts