Advertising
hemel
Advertising
hemel

এক সপ্তাহ সাঁড়াশি অভিযানে ১৯৪ জঙ্গি গ্র্রেফতার

সারাদেশে সপ্তাহব্যাপী জঙ্গিবিরোধী বিশেষ অভিযানের শেষ দিনে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ জঙ্গি গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এখন পর্যন্ত ১৯৪ জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে তারা। আজ শুক্রবার (১৭ জুন) পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের জনসংযোগ কর্মকর্তা এ কে এম কামরুল আহছান এই তথ্য জানিয়েছেন। এর মধ্যে ৯ জন নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি), আর ৭ জন হিজবুত তাহরির এবং একজন আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের (এবিটি) সদস্য।

রাজধানী ঢাকা রেঞ্জের মাদারীপুর জেলা থেকে ১ জন হিজবুত তাহরির, চট্টগ্রাম রেঞ্জের চট্টগ্রাম জেলা থেকে ২ জন জেএমবি এবং ১ জন হিজবুত তাহরির,  ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা থেকে ১ জন জেএমবি, রাজশাহী রেঞ্জের নওগাঁ জেলা থেকে ২ জন জেএমবি, খুলনা রেঞ্জের সাতক্ষীরা জেলা থেকে ১ জন জেএমবি, রংপুর রেঞ্জের রংপুর জেলা থেকে ১ জন জেএমবি, গাইবান্ধা জেলা থেকে ১ জন জেএমবি, ঠাকুরগাঁও জেলা থেকে ১ জন জেএমবি, আর পঞ্চগড় জেলা থেকে ১ জন জেএমবি এবং রাজধানী ঢাকা থেকে ১ জন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম ও ৪ জন হিজবুত তাহরির সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ১টি পাইপগান, ১টি শাটারগান, ১ রাউন্ড গুলি, ২টি ককটেল, ১টি রামদা, ১টি চাপাতি এবং ১৪টি উগ্রপন্থি বই উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, সাত দিনের জঙ্গিবিরোধী বিশেষ অভিযানে নানান জঙ্গি সংগঠনের মোট ১৯৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ১৫১ জন জেএমবি, ৭ জন জেএমজেবি, ২১ জন হিজবুত তাহরির, ৬ জন আনসারুল্লাহ বাংলাটিম, ৩ জন আনসার আল ইসলাম, ৪ জন আল্লার দল, ১ জন হরকাতুল জিহাদ এবং ১ জন আফগানফেরত জঙ্গি সংগঠনের সদস্য।

গত ৫ জুন সকালে চট্টগ্রামের জিইসি মোড়ে প্রকাশ্যে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে ছুরিকাঘাত এবং গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। মিতু হত্যার তিন দিন পরই তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী এবং জঙ্গি ধরতে বিশেষ অভিযানের ঘোষণা দেয় পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

Related posts