Advertising
Advertising

ম্যাচ না জেতাটাই সবচেয়ে বড় অতৃপ্তি: সাকিব

টি-২০ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে বেশ ভালই খেলেছিলেন টিম বাংলাদেশ। তাই ফলাফল স্বরূপ ঠাঁই হয়েছিল চুড়ান্ত পর্বে। কিন্তু চুড়ান্ত পর্বে এসে একটি ম্যাচও জিততে না পারাটা বড় বেশি ব্যর্থতা তিলক একে দিয়েছে সাকিবদের কপালে। আর তার সাথে শর্ট ফরমেটের এই বিশ্ব আসরের মূলপর্বে একটি ম্যাচও জিততে না পারার অতৃপ্তি যোগ হয়েছে তাদের মনে। এছাড়া ভারতের বিপক্ষে মাত্র ১ রানে হেরে যাওয়ার কারন আজও খুজে পাননা তিনি। শনিবার এমনটিই জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের সহ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের নতুন মোটরসাইকেল উদ্বোধন কালে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কোম্পানিটির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর সাকিব আল হাসান। সেখানেই সদ্য শেষ করা টি-২০ বিশ্বকাপ নিয়ে কথা বলেন বাংলাদেশের এই সেরা অলরাউন্ডার। তিনি বলেন, ‘টি-২০ বিশ্বকাপে প্রথম চ্যালেঞ্জটা ছিল দ্বিতীয় পর্বে আসা। সেটিতে আমরা ভালোভাবেই সফল হয়েছি। তারপর মূল পর্বে ভালো ক্রিকেট খেলেছি। কিন্তু ম্যাচ জিততে পারিনি একটিও। তাই নিজের কাছেই অতৃপ্তি রয়েছে।

মূলপর্বে ভারতের বিপক্ষে এক রানে হারের কারন প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘কেন এই ম্যাচটা হেরেছি তা আমার জানা নেই। এই প্রশ্নের কোন উত্তর খুঁজে পাই না। ম্যাচ হারার পর বাংলাদেশ ড্রেসিং রুমে একই অবস্থা বিরাজ করছিল। সবাই খুঁজছিল এই প্রশ্নের উত্তর; কেন আমরা হারলাম?

তবে তিনি এই হারটিকে নিজেদের জন্যে বড় শিক্ষা হিসেবে নিতে চান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে আজ নিজেকে সান্ত্বনা দেওয়া ছাড়া আর পথ নেই। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের অবস্থা না হয় সেই চেষ্টাই করতে হবে।’টি-২০বিশ্বকাপে নিজেদের অতৃপ্তি নিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘২০০৭ সালের পর টি-২০ বিশ্বকাপে এখনও বড় কোনও দলকে হারাতে পারিনি। আমাদের প্রাপ্তি রয়েছে অনেক। কিন্তু ম্যাচ না জেতাটাই সবচেয়ে বড় অতৃপ্তি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অন্যতম আলোড়ন সৃষ্টিকারী দল, এতে কোনও সন্দেহ নেই। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএলে)’এ সাকিব এবারও খেলবেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে। নিজের পেশাদারিত্বের কথা উল্লেখ করে এসময় সেখানে ভাল করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি বলেন, ‘সামনে আইপিএল-এ প্রসঙ্গে খুব একটা ভাবছি না। আমি পেশাদার ক্রিকেটার। যেখানেই খেলি নিজের সর্বোচ্চ নৈপুণ্য প্রদর্শনের জন্যই খেলি।

Related posts