Advertising
hemel
Advertising
hemel

সুপার টেনে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

ওয়ার্ল্ড টি-টুয়েন্টির খবর। সুপার টেনে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। প্রথম পর্বের ধারবাহিকতা ধরে রেখে জয় দিয়ে টাইগারররা সুপার টেন পর্ব শুরু করতে চায় বলে জানিয়েছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। অন্যদিকে বাংলাদেশেকে সমীহ করলেও দলগত পারফরমেন্স নিয়েই নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানও জয় পেতে চায়। কলকাতার বিখ্যাত ইডেন গার্ডেনে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেলে সাড়ে তিনটায়।

ধর্মশালার পর্ব শেষ। এবার টাইগারদের মিশন সুপার টেন। যেখানে প্রথম ম্যাচে প্রতিপক্ষ সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। এশিয়া কাপে যে দলটির বিপক্ষে জয়ের স্মৃতিটা হয়তো এখনও সতেজ ক্রিকেটারদের। তারপরেও আবার খেলাটা হবে ঐতিহ্য বাহী ইডেন গার্ডেনে। দীর্ঘ ২৫ বছর পর আবারও লাল সবুজের জার্সি গায়ে নামবে বাংলাদেশ। গেল এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৬ বছর পর জয় পায় টাইগাররা। এরপর থেকে পাকিস্থানকে পেলেই টাইগাররা হয়ে উঠে দূরন্ত দুর্বার। সর্বশেষ ৫টি ম্যাচেই জিতেছে টাইগাররা। তারপরও প্রতিপক্ষকে সমীহ করছে বাংলাদেশ। কারন দলটির নাম পাকিস্তান। তাদের নামের পাশে তকমা আন প্রেডিকটেবল। তবে বাংলাদেশের লক্ষ্য যে জয়, সেটা জানিয়ে রেখেছেন টাইগার অধিনায়ক।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, অবশ্যই আমরা জিততে চাই।আমরা ভালো খেলতে চাই কিন্তু ফেবারেট কথাটা আমরা আনতে চাইনা। আমরা শেষে যেভাবে খেলেছি সেভাবে খেললে আমাদের বিশ্বাস আমরা ভালোভাবে খেলতে পারবো।

সাকিব মাশরাফি ছাড়া বাংলাদেশের স্কোয়ার্ডে থাকা সবার জন্য ইডেন হবে নতুন অভিজ্ঞতা। এছাড়াও টাইগার ভক্তদের জন্য স্বস্তির খবর হল চোট কাটিয়ে ফিরতে প্রস্তুত কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান। অনুশীলনে সব বল করেছেন এই বাঁহাতি পেসার। এছাড়াও দুর্দান্ত ফর্মে থাকা তামিম ইকবালও পিএসএলে ছিলেন এই পাকিস্তানিদের জন্য মূর্তিমান আতঙ্ক। টি-টুয়েন্টিতে সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ড আছে পাকিস্তানের। তারপরেও তারা চিন্তায় আছেন। এই চিন্তার কারন অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদির অসুস্থতা।

ওয়াকার ইউনিস কোচ পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল বলেন, গত দেড় দুবছর বাংলাদেশ যে ভাবে খেলেছে তাতে তারা যেকোন দলকে হারানোর সামর্থ রাখে। এটা অনেক বড় মঞ্চ। এখানেও তারা নিজেদের প্রমানের জন্য রুখে থাকবে। তবে আমরাও প্রস্তুত। ইতিবাচক ক্রিকেট খেলবে আমার ছেলেরাও।

বিশ্ব টি -টুয়েন্টিতে কখনই পাকিস্তানকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। এবার ইডেনে নিশ্চয় সেই ইতিহাসটাও রচনা করতে চাইবে মাশরাফিরা।

Related posts