Advertising
Advertising

শেষরক্ষা হলো লঙ্কানদের

কোয়ালিফাইং রাউন্ডের অপরাজিত দল আরব আমিরাত। আরব আমিরাতের শিকার আফগানিস্তান, ওমান ও হংকং।  আরব আমিরাতের লক্ষ্য ছিল মূলপর্বেও ঝাঁঝালো লড়াই করার। আরব আমিরাতের সে পথে শুরুতেই শ্রীলঙ্কা, মিললো তেমনই আভাশ বল হাতে । শ্রীলঙ্কাকে ঠেসে ধরে নিজেদের টার্গেট ছোট রেখেছিল আরব আমিরাত। কিন্তু মিরপুরে ব্যাটিংয়ের শুরু থেকে উল্টো পথের যাত্রী আরব আমিরাত । আরব আমিরাতের ২০ রান না পেরোতে প্রথম সারির ৪ উইকেট হাওয়া তারা তবুও লড়াই চললো।

স্বপ্নিল পাটিলের ব্যাটে স্বপ্ন ভর করলো  আরব আমিরাতের। প্রায় জয়ের কাছাকাছিও চলে গিয়েছিল  সংযুক্ত আরব আমিরাত। তবুও শেষটা মধুর হলো না আরব আমিরাতের। এশিয়া কাপের বর্তমান চ্যম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে জ্বালা দিলেও ১৪ রানে হার মানতে হলো প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপ খেলতে আসা সংযুক্ত আরব আমিরাতকে। কিন্তু ব্যাট হাতে শুরুতে মালিঙ্গা ঝড়ের কবলে আরব আমিরাতরা। লঙ্কান অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গা প্রথম বলেই ফিরিয়ে দেয় আরব আমিরাতের ওপেনার রোহান মুস্তফাকে।

তারপরে ৪ বল থেকে এলো ৭ রান। কিন্তু শেষ বলে আবারো মালিঙ্গা টর্নেডো এবার উপড়ে নিলো মোঃ শাহজাদের স্টাম্প। ১ ওভারে নেয় ২উইকেট। শুরুর এই চাপ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আরো৩ উইকেটের পতন হয় আরব আমিরাতের। ৩৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে আমিরাতের ঘোর তখন অন্ধকারে। তখন নিজেদের ইনিংস নতুন করে শুরু করে ব্যাটসম্যান স্বপ্নিল পাটিল।

চারের সঙ্গে সঙ্গে ছয়ের মারও দিচ্ছে স্বপ্নিল পাটিল। উইকেট পড়লেও  পাটিলের ব্যাটে ৮০ পেরিয়েছে। মালিঙ্গা এসময়  আবারো ঝড়, মালিঙ্গা শিকার সর্বোচ্চ ৩৭ রান করা স্বপ্নিল পাটিল তখন জয় দেখতে পাচ্ছে শ্রীলঙ্কা। তখন শুধু আরব আমিরাত হারের ব্যবধান কমিয়েছে। শেষপর্যন্ত তাদের থামতে হয় ১১৫ রানে। কিন্তু আরব আমিরাতের লড়াই হয়তো চমকে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে।  

Related posts